খেলাধুলার প্রয়োজনীয়তা

খেলাধুলার প্রয়োজনীয়তা

খেলাধুলার প্রয়োজনীয়তা
খেলাধুলার প্রয়োজনীয়তা

সুষ্ঠু ও সুন্দর জীবনের জন্য কর্মের পাশাপাশি বিনোদনও প্রয়োজন। এ বিনোদন লাভের উপায় হচ্ছে খেলাধুলা। খেলাধুলার মাধ্যমে  মনকে সুন্দর ও সতেশ করা যায়। আধুনিক যান্ত্রিক সভ্যতার যুগে মনের চাহিদা পূরণের জন্য সৃষ্টি হয়েছে আনন্দ লাভের নানা উপায় কিন্তু খেলাধুলার মাধ্যমে মানুষ পেতে পারে নির্মল আনন্দ। তাই মানব জীবনে আর প্রয়োজনীয়তা অনুস্মিকার্য। 

খেলাধুলার প্রকারভেদ

 খেলাধুলার সাধারণত দুই ধরনের হয়ে থাকে। একটি হচ্ছে ঘরোয়া খেলাধুলা এবং অপরটি হয়েছে বহির্জগতের খেলাধুলা। এ দু ধরনের খেলার মধ্যে দেশীয় এবং আন্তর্জাতিক খেলাও হতে পারে। আমাদের দেশেও খেলার মধ্যে হাডুডু, কাবাডি, কানামাছি, বৌচি, গোল্লাছুট ইত্যাদি প্রধান। আন্তর্জাতিক কালের মধ্যে রয়েছে ফুটবল, ক্রিকেট, হকি, দাবা, ব্যাডমিন্টন, ভলিবল ইত্যাদি। জাতীয় জীবনে দেশে এবং আন্তর্জাতিক এর দুই প্রকার খেলায় আবশ্যক। আমাদের দেশে এত প্রকার খেলায় প্রচলিত।

স্বাস্থ্যকর খেলাধুল

খেলাধুলার প্রয়োজনীয়তা
খেলাধুলার প্রয়োজনীয়তা

খেলাধুলার প্রয়োজনীয়তা শুধু মনের প্রশান্তির জন্যই নয়, স্বাস্থ্য রক্ষারও ক্ষেত্রেও এর গুরুত্ব রয়েছে। সুস্থ দেহের ভেতরেই থাকে সুস্থ সুন্দর মন। শরীর ভালো না থাকলে মন ভালো থাকে না। খেলাধুলার মাধ্যমেই শরীরে গঠন করা যায়। বিভিন্ন প্রকার শারীরিক কসরত, হাটা, দৌড়ানো, সাঁতার কাটা ,সাইকেল চালনা ইত্যাদি শরীরের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গসঞ্চারিত করে দেহে রক্ত সঞ্চালন ফুসফুসের কার্যক্রমতা ও পেশী সমূহের শক্তি বৃদ্ধি করে। এছাড়াও আর অন্য প্রকার দেশীয় আন্তর্জাতিক খেলাধুলা যেমন হাডুডু, কাবাডি, গোলাছুট, ফুটবল, টেনিস, হকি, ক্রিকেট ইত্যাদি ও স্বাস্থ্য রক্ষা শরীর গঠনের সহায়ক। 

বুদ্ধি বিকাশে খেলাধুল

খেলাধুলার প্রয়োজনীয়তা
খেলাধুলার প্রয়োজনীয়তা

া খেলাধুলা শুধু শরীর গঠনে সহায়তা করে না বুদ্ধি বিকাশ ও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। অনেক খেলা আছে যেগুলো বুদ্ধির প্রয়োগ ছাড়া জেতা যায় না।  যেমন দাবা, তাস, ১৬ গুটি, স্কবল ইত্যাদি। এসব খেলায় বুদ্ধি চাচার ফলে মানুষের বুদ্ধি বিকাশ ঘটে।  তা ছাড়া সব কেলেও কম বেশি বুদ্ধি প্রয়োগের সুযোগ থাকে।

নিয়মানুবর্তিতা ও চরিত্র গঠনে খেলাধুলা

খেলাধুলা মানুষকে নিয়মানুবর্তিতা ওই চরিত্র গঠনে বিশেষভাবে সহায়তা করে।  খেলার মাঠে খেলোয়াড়দের খেলার নিয়ম কানুন মানতে হয়, মানতে হয় খেলা পরিচালকের নির্দেশাগুলি। এমনিভাবে একজন খেলোয়ার খেলার মাধ্যমে নিয়মানুবর্তিতা সম্বন্ধে শিক্ষা পায় এবং মনকে সুন্দর প্রফুল্ল রেখে চরিত্র গঠনের সুযোগ পায়।  কারণ খেলাধুলার মধ্যে নিয়ম শৃঙ্খলা বিদ্যমান। এর নিয়ম শৃঙ্খলায় মানুষের চরিত্রে সৃষ্ট আচরণ উপহার দেয়। খেলাধুলার প্রেক্ষিতে পরোক্ষভাবে হলো গোটা মানব সভ্যতার চরিত্র সুন্দর বিকশিত হয়।

 ব্যক্তিগত জীবনে খেলাধুলার প্রভাব

খেলাধুলার প্রয়োজনীয়তা
খেলাধুলার প্রয়োজনীয়তা

প্রতিটি খেলায় জয় পরাজয়ের বিষয় থাকে। জয় পরাজয়ের প্রভাবে মানুষ আত্মপ্রত্যয়ী ও সহনশীল হিসেবে গড়ে উঠতে পারে।  তাছাড়া খেলায় জয়লাভে নানা কৌশল, আত্মরক্ষা ও আক্রম,ণ প্রতিহত করার নানা উপায় গৃহীত হয়। জীবন সংগ্রামের পথে ও নানা আঘাত প্রতিঘাত ও প্রতিবন্ধকতা আছে।  শক্তি, সাহস, ক্ষ্রিপ্ততা তীব্রতা, বুদ্ধি ও কৌশল দিয়ে এসব বাধা জয় করা যায়। খেলাধুলায় জয়লাভের যে  অনমনীয় মনোভাব থাকে তার সাহায্যে মানুষ জীবনের হতাশা ও ব্যর্থতাকে জয় করতে সক্ষম হয়। 

জাতীয় জীবনে খেলাধুলার গুরুত্ব

জাতীয় জীবনে খেলাধুলার গুরুত্ব অপরিসীম।  বিশ্বের উন্নত দেশগুলোর নানা প্রকার অগ্রগতির সাথে কিরা ক্ষেত্রেও অভূতপূর্ব উন্নতি সাধন করছে।  রাশিয়া, যুক্তরাষ্ট্র ,ও যুক্তরাজ্য, জার্মানি, ফ্রান্স, চীন, কোরিয়া, জাপান ইত্যাদি দেশ অভ্যন্তরীণ ক্রীড়া ক্ষেত্রে সুনাম অর্জন ছাড়াও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন খেলায় দক্ষতা ও সাফল্যের সাথে অংশগ্রহণ করে জাতির গৌরব বৃদ্ধি করেছে। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বিভিন্ন খেলা যেমন বিশ্বকাপ, অলিম্পিক গেম,স এশিয়ান গেমস, সাফ গেমস ইত্যাদি ক্ষেত্রে উন্নত দেশের খেলোয়াড়গণ অংশগ্রহণ করে কৃতিত্বের সাথে ছিনিয়ে নিচ্ছে বিজয়পদক। কখন কখনও কোন কৃতি খেলোয়াড়ের নামে সমগ্র জাতি পাচ্ছে বিশ্বের দরবারে গৌরবের আসন।  সম্প্রতি আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ক্রিকেট খেলায় বাংলাদেশ দলের বিজয় দেশটির সুনাম বৃদ্ধি করেছে এবং বিশ্বের দরবারে বাঙালির জাতীয় লাভ করেছে গৌরবের আসন। খেলাধুলা জাতিকে একদিকে যেমন দেশ স্বাস্থ্য ও মানসিক আনন্দ অপের দিকে গৌরব। দেহমন একটি স্বাস্থ্যবান জাতি শুধু খেলাধুলায় নয় সভ্যতার সকল ক্ষেত্রেই রাখতে পারে গৌরব উজ্জ্বল অবদান। শুধু তাই নয় খেলাধুলা মানুষের মধ্যকার দূরত্বের ব্যবধান গুছিয়ে এনে জাতি, ধর্ম ও বর্ণ নির্বিশেষে মানুষের মানুষের বন্ধুত্ব সৃষ্টি করে বিশ্ব ভাতৃত্ববোধে আবদ্ধ করতে পারে। এরই মাধ্যমে মানুষ লাভ করতে পারে মনুষ্যত্বের দুর্লভ ঐশ্বর্য।

শরীর ও স্বাস্থ্যের জন্য খাবার, ঘুম ও বিশ্রাম যেমন প্রয়োজন তেমনি শরীরচর্চা বা খেলাধুলাও দরকার। ইহা শুধু শরীর গঠনের সহায়তা করে না, মানসিক বিকাশেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। বর্তমান বিশ্বের খেলাধুলা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় বলে বিবেচিত।  মুষ্টি যুদ্ধ মোহাম্মদ আলী, ফুটবলার ম্যারাডোনা, ক্রিকেটার সুনীল গাবাস্কার, সৌরভ গাঙ্গুলী, টেন্ডুলকার, ইমরান খান প্রভৃতি বিখ্যাত ব্যক্তিবর্গ খেলাধুলাকে অবলম্বন করেই জগতে অক্ষয় হয়ে আছেন। সুতরাং খেলাধুলা কে গুরুত্ব দিয়ে আমাদের সকলেরই উচিত দেশ ও জাতির জন্য কৃতিত্ব ও সম্মান বয়ে আনা। এর মাধ্যমে শারীরিক,মানসিক ও নৈতিক সব রকমের শিক্ষা লাভ করা যায়। চিত্রবিনোদন ও সুস্থ জাতি গঠনের ক্ষেত্রে খেলাধুলা যে অন্যতম মাধ্যম এ কথা আর সর্বজন স্বীকৃত। তবে অতিরিক্ত খেলাধুলা শরীর ও মস্তিষ্কের ক্ষতি করে এবং উন্নতির পথে বাধা হয়ে দাঁড়ায় একতাও আমাদেরকে স্মরণ রাখতে হবে। 

Views: 9

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *