অ্যালোভেরার উপকার

এলোভেরা একটি আশ্চর্য উদ্ভিদ হিসেবে পরিচিত।স্বাস্থ্য তোকে যত্ন এবং ঘরুয়া ঔষধ হিসেবে এটি বেশি পরিচিত।  এলোভেরার কিছু গুরুত্বপূর্ণ কাজ চালনা করা হলোঃ

০১। ত্বকের  যত্নঃএলোভেরা জেল তার ময়েশ্চারাইজিং বৈশিষ্ট্যের জন্য বিখ্যাত। এটি তোকে শেষ কথা বজায় রাখতে এবং হাইডেড করতে ব্যবহার করা হয়।  ত্বকের শুষ্কতা রোদে পুরা এবং ছোটখাটো জ্বালাপোড়ার জন্য এটি একটি চমৎকার ওষুধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়। এর মধ্যে এমন কিছু ঔষধি গুণ রয়েছে যা মানুষের প্রদাহ কমাতে এবং কত স্থানের নিরাময় করে। এলোভেরা পরিপূর্ণ একটি ওষুধ।

০২। রোদে পোড়া দূর করেঃই তার শীতল এবং প্রশান্তিধায়ক বৈশিষ্ট্যের কারণে রোদে ভোরের জন্য জনপ্রিয় একটি প্রতিকারমূলক ওষুধ।  আমরা রোদে বেশিক্ষণ সময় কাজ করার কারণে আমাদের তো পুড়ে যায় এবং ত্বকের মধ্যে বিভিন্ন ধরনের জ্বালাপোড়া সহ বিভিন্ন ধরনের চর্ম রোগের সৃষ্টি হয়।  এলোভেরা জেল ব্যবহার করলে ত্বকের উজ্জ্বলতার বৃদ্ধি পায় এবং ত্বকের তার প্রয়োজনীয় পুষ্টির প্রধান থেকে গ্রহণ করতে পারে। যার কারণে আমাদের তো উজ্জ্বল সুন্দর এবং মসৃন থাকে। ফকির শুধু যে বিধির জন্য এলোভেরা জেল মধুসীহ আরো বিভিন্ন ধরনের ওষুধের কাছে ব্যবহার করলে এর সর্বোচ্চ উপকার পাওয়া যায়। এলোভেরা জেলের সাথে দুধ মিশিয়ে এবং ডাবের পানি মিশিয়ে ব্যবহার করলে ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায় এবং ত্বকের মধ্যে টানটান ভাব তৈরি হয়।

০৩।  ব্রণের চিকিৎসাঃ  এলোভেরার এন্টি মাইক্রোবিয়াল এর জন্য এটি ব্রণ সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়ার বিরুদ্ধে কক্ষে কার্যকর করে তুলে।  এটি বোনের সাথে সম্পর্কিত বিভিন্ন ধরনের সমস্যা এবং ত্বকের মধ্যে যে লাল ভাব তৈরি হয় সেটি দূর করে।  এটি ব্রনের প্রবণ ত্বকের জন্য ত্বকের মধ্যে থাকা বিভিন্ন ধরনের ধ্বংস করে। যার কারণে আমাদের তো সুন্দর মসৃণ এবং সতেজ থাকে। তবে ব্রণ থেকে মুক্ত হওয়ার জন্য এলোভেরা ছাড়াও আপনি নিয়মিত মুখ পরিষ্কার রাখতে পারেন।

০৪।  চুল পরিচর্যাঃ ঘৃতকুমারী চুল এবং মাথার ত্বকে প্রশ্ন জগতে এবং কন্ডিশন করতে পারে। এটি মাথার ত্বকের  PH ভারসাম্য বজায় রাখতে সাহায্য করে ত্বকের বিভিন্ন ধরনের সমস্যা দূর করে এবং খুশকি মুক্ত করে। কিছু মানুষ বিশ্বাস করে যে এটির জুনের বিধিতে উৎসাহিত করে এবং জলকে লম্বা এবং সুন্দর করতে পারে। নিয়মিতভাবে চুলে এলোভেরা জেল ব্যবহার করলে চুলের মধ্যে রেশমি ভাব চলে আসে এবং চুল চিকন সুন্দর ও সতেজ হয়। চুল লম্বা করার জন্য এর সাথে মধু মিশিয়ে মাথায় পেস্ট করলে অতি তাড়াতাড়ি লম্বা হয়ে যায়।

০৫। পরিপাকতন্ত্রের চিকিৎসাঃ রস খাওয়া হজমের স্বাস্থ্যের জন্য কার্যকরী একটি উপাদান। এটিতে এমন কিছু ঔষধি গুণ রয়েছে যা বদহজম কোষ্ঠকাঠিন্য এবং ইরিটেবল ভাওয়েল সিনরুম এর মত গ্যাস্টো ইন টেস্টাইল সমস্যা গুলোকে দূর করে এবং এগুলোর প্রতিকার করে। অভ্যন্তরীণ ব্যবহারের উদ্দেশ্যে এলোভেরা পণ্য গুলি ব্যবহার করা এবং এটি করার আগে একজন সেবার পরামর্শ নিয়ে ব্যবহার করা সবচেয়ে উত্তম। তবে সরাসরি এলোভেরা জেল ব্যবহার করলে এগুলো যেহেতু প্রাকৃতিক একটি উপাদান। এর কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই এগুলো উপকার করে কিন্তু অপকার করে না।

০৬।  ইমিউন সাপোর্টঃ এলোভেরাতে  রয়েছে বিভিন্ন ভিটামিন মিনারেল এবং এন্টিঅক্সিডেন্ট সিস্টেমকে সাহায্য করে। এলোভেরা জুস বা পরিপূরক নিয়মিত সেবন করলে আমাদের দেহের সমস্ত ধরনের সমস্যা দূর করে এবং দেয়া সুস্থতা বজায় রাখতে এটি একটি কার্যকর ভূমিকা পালন করে। এলোভেরা যেহেতু একটি প্রাকৃতিক উদ্ভিদ যার মাধ্যমে এর মধ্যে সব ধরনের রয়েছে। সব ধরনের চিকিৎসার ব্যবহার করা যায়।

০৭। মুখের চিকিৎসাঃ এলোভেরা এন্ট্রি মাইক্রোব্রিয়াল বৈশিষ্ট্যের কারণে প্রাকৃতিক হিসেবে ব্যবহার করা হয়।  এটি ফ্লাট তৈরি কমাতে মাড়ির প্রদাহর প্রশমিত করতে এবং সামগ্রিক শাস্ত্রের চিকিৎসার জন্য এটি ব্যবহার করা হয়।  মৌখিক ব্যবহারের জন্য বিশেষভাবে প্রণীত এলোভেরার পণ্যগুলো ব্যবহার করা এবং প্রচুর পরিমাণে এগুলো থেকে উপকার পাওয়া যায়। আমাদের মুখের বিভিন্ন ধরনের সমস্যার জনিত কারণে এলোভেরা জেল ব্যবহার করা যেতে পারে।

০৮।  এন্টি অভিডেন্টঃ এলোভেরার ভিটামিন এ সি এবং ই শেষ রাতে এবং পলিফেনলের মত এনটিঅক্সিডেন্ট রয়েছে। এ উপাদান গুলো শরীরের ফ্রি জারডিকেলগুলোকে নিরপেক্ষ করতে পারে যা আমাদের বার্ধক্য এবং বিভিন্ন রোগের উপশম থেকে রক্ষা করে।

০৯। ক্ষত নিরাময়ঃ ঘৃতকুমারী জেল কত কাটা এবং পুরা নিরাময় প্রক্রিয়া জন্য উপকারী। এটি ত্বকের উপর একটি প্রতিরক্ষামূলক বাধা তৈরি করে ত্বকের আদ্র রাখি এবং টিস্যু পুনর্জন্মকে বৃদ্ধি করে।  এর এন্টি ইনফ্লামেটরি বৈশিষ্ট্য গুলোর কারণে আঘাতের হাত থেকে রক্ষা করে এবং ব্যাথা সহ বিভিন্ন ধরনের সমস্যা থেকে রক্ষা করে।

১০। এন্টি ইন ফ্লামেটরি ইফেক্টসঃ এলোভেরার এসেসমেন্ট এর মত যোগ্য রয়েছে যার পদাহবিরোধী মত কিছু বৈশিষ্ট্য রয়েছে। এবং একজিমা সুরিয়াসিসের মতো প্রদাহজনক ত্বকের রোগের মতো অবস্থা সাথে সম্পর্কিত বিভিন্ন ধরনের রোগ কমাতে পারে।

পরিশেষে বলা যায় যদিও অ্যালোভেরা অনেক উপকার করে তবে এটি যথাযথভাবে ব্যবহার করা এবং ওষুধের সাথে সম্ভাব্য এলার্জির প্রতিক্রিয়া বা মিথস্ক্রিয় সম্পর্কে সচেতন হওয়া জরুরী। যেকোনো প্রাকৃতিক প্রতিকারের মতো ওষুধের উদ্দেশ্যে এলোভেরা ব্যবহার করার আগে একজন স্বাস্থ্যসেবা পেশাদার সাথে পরামর্শ করে নেওয়া ভালো।  বিশেষ করে যদি আপনার কোন অন্তর্নিহিত স্বাস্থ্যগত অবস্থা থাকে। 

আদার উপকারিতা

Views: 21

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *